হত্যার পর লাশ পোড়ানোর ঘটনায় এক অভিযুক্ত গ্রেপ্তার

লালমনিরহাটের বুড়িমারীতে কোরআন অবমাননার অভিযোগ ‍তুলে মো. শহিদুন্নবী জুয়েলকে পিটিয়ে হত্যার পর লাশ পোড়ানোর ঘটনায় এজাহারনামীয় এক নম্বর অভিযুক্ত আবুল হোসেন (৪৫) কে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ (ডিবি)। আজ শনিবার ভোরে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ঢাকা মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (মিডিয়া) মো. ওয়ালিদ হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের (ডিবি) একটি টিম রাজধানীর কুড়িল বিশ্ব রোড এলাকা থেকে আবুল হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তারকৃতকে লালমনিরহাট জেলা পুলিশের হাতে হস্তান্তির করা হয়েছে বলেও জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।

গত ২৯ অক্টোবর লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী ইউনিয়ন পরিষদের ভেতরে আবু ইউনুস মো. শহিদুন্নবী জুয়েলকে হত্যার পরে লাশ টেনে নিয়ে লালমনিরহাট-বুড়িমারী জাতীয় মহাসড়কে পেট্রোল ও কাঠখড়ি দিয়ে পোড়ানো হয়। এ ঘটনায় তিনটি মামলায় ১১৪ জনের নাম উল্লেখ করে ও  কয়েক শত মানুষকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

নিহত যুবক আবু ইউনুস মো. শহিদুন্নবী জুয়েল রংপুর শহরের শালবন মিস্ত্রীপাড়া এলাকার আব্দুল ওয়াজেদ মিয়ার ছেলে। তিনি রংপুর ক্যান্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের সাবেক গ্রন্থাগারিক এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র ছিলেন।

আবু ইউনুস মো. শহিদুন্নবী জুয়েল নিহতের ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। লালমনিরহাটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে প্রধান করে তদন্ত কমিটি গঠন করেন জেলা প্রশাসক মো. আবু জাফর। আগামী ৩ দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। অপরদিকে র‍্যাবের পক্ষ থেকেও ছায়া তদন্ত করা হচ্ছে।