অপূর্বর বিয়ে নিয়ে যা বললেন সাবেক স্ত্রী

আবারও বিয়ে করছেন ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেতা জিয়াউল ফারুক অপূর্ব। পাত্রী যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক শাম্মা দেওয়ান। শাম্মা দেওয়ানের জন্ম ও বেড়ে ওঠা আমেরিকায়। তার পৈত্রিক নিবাস ঢাকার লালমাটিয়ায়। অপূর্ব বলেছেন, ‘বিয়ে করছি, চুরি বা ক্রাইম তো না। ফলে এটা নিয়ে লুকোচুরির কিছু নেই। বিয়ে আমি করছি, এটা সত্যি। আমরা বিয়ে করছি আগামীকাল, ২ সেপ্টেম্বর। ’

এদিকে, অপূর্বর তৃতীয় বিয়ে নিয়ে মুখ খুলেছেন সাবেক স্ত্রী (দ্বিতীয়) নাজিয়া হাসান অদিতি। বুধবার বিকেলে নিজের ব্যক্তিগত ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে নাজিয়া লিখেছেন, ‘চার বছরের প্রেম সফল হলো মাশাআল্লাহ্.., নতুন বিয়ের জন্য শুভ কামনা।’

অনেকেই নাজিয়ার এই মন্তব্যকে তাদের সংসার ভাঙার কারণ হিসেবে দেখছে। কারো কারো ধারণা, অপূর্ব যেহেতু চার বছর ধরে প্রেম করেছেন সেহেতু স্বাভাবিকভাবেই নাজিয়ার সঙ্গে সম্পর্কটা ভেঙে গেছে।

ফেসবুকে নাজিয়ার স্ট্যাটাসে অমৃতাঞ্জয়ী শ্রেষ্ঠেশ্বরী নামের একজন মন্তব্য করেছেন, ‘আপনার সাথে যখন এক ডিশ দুই কুক করল, তখনি যা অভিনয়টা করল (জানি না সেটা রিয়েল নাকি আগে থেকে স্ক্রিপ্ট করা) সে এত পজেসিভ আপনার ব্যাপারে, হ্যান ত্যান, তখনি মেজাজ খারাপ লাগছে। আর এখন বুঝতেছি কেন এত ডমিনেট করতে ট্রাই করত। অসহ্য লাগে এখন অপূর্বকে দেখলে।’

নাজিয়ার ওই পোস্টে প্রচুর মন্তব্য পড়ছে, যার ফলে অনেকটাই স্পষ্ট হচ্ছে নাজিয়া-অপূর্ব সংসার ভেঙে যাওয়ার নেপথ্যের বিষয়টি যেটা রহস্যাবৃত ছিল। শুভাকাঙ্ক্ষী ও কাছের অনেকেই এমন মন্তব্য করছেন যেটার তারা প্রত্যক্ষদর্শী। তবে এখন এটা স্পষ্ট হলো যে শাম্মা দেওয়ানের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক থাকার কারণেই সংসার ভেঙেছে।

উল্লেখ্য, গত বছর নাজিয়া হাসান অদিতির সাথে ভেঙে যায় অপূর্বর দ্বিতীয় সংসার। ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে দীর্ঘ ৯ বছরের সংসার জীবনের ইতি টানেন এই তারকা অভিনেতা। এর আগে ২০১০ সালের ১৯ আগস্ট পালিয়ে গিয়ে অভিনেত্রী সাদিয়া জাহান প্রভাকে বিয়ে করেছিলেন অপূর্ব।