গাজীপুরে যুব মহিলা লীগের নেতৃত্বে ‘মাদক কারবারি’

গাজীপুর মহানগরের ৫৫ নং ওয়ার্ড যুব মহিলা লীগের সদ্য ঘোষিত কমিটিতে মাদক কারবারি সীমা আক্তারকে সভাপতির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তিনি মাদকসহ আইনশৃঙ্খরা বাহিনীর হাতে বেশ কয়েকবার গ্রেপ্তার হয়ে জেলও খেটেছেন। সেই সঙ্গে তার নামে টঙ্গী পশ্চিম থানায় একাধিক মাদক মামলাও রয়েছে বলেও জানা গেছে।

গত ১৯ জানুয়ারী, ২০২২ইং গাজীপুর মহানগরের ৫৫ নং ওয়ার্ড যুব মহিলা লীগের কমিটি ঘোষণা করা হয়। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সীমার বিরুদ্ধে টঙ্গী পশ্চিম থানায় মাদক মামলা নং ১৮, তাং ১৭/০৩/২০১২ইং ধারা ১৯(১) এর ৭(ক)/২২(গ), মামলা নং ৪১, তাং ২১/০৪/২০১৭ ইং ধারা ১৯(১) এর ১(ক)/২৫, ১৯৯০ সালের মাদক আইন। মামলা নং ২৮, তাং ৩০/০১/২০১৯ ইং ধারা, ৩৬(১) সারনির ৯(ক)/৪১, ২০১৮ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা রয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দেড় বছর আগে স্থানীয় প্রশাসন ও ক্ষমতাসীন দলের নেতৃবৃন্দের যৌথ উদ্যোগে সীমার ঘরবাড়ি ভেঙ্গে দেওয়া হয়। পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে সেই জায়গায়ই দোতলা পাকা বাড়িও নির্মাণ করেন তিনি। এ জন্য কিছু অসাধু রাজনৈতিক ব্যক্তি ও প্রশাসনের ছত্রছায়াকে দায়ী করছেন এলাকাবাসী।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে সাংবাদিক পরিচয় শুনেই মুঠোফোনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন সীমা আক্তার। এদিকে, তিনি আগে মাদক কারবারির সঙ্গে জড়িত ছিলেন স্বীকার করে গাজীপুর মহানগর যুব মহিলা লীগের আহ্বায়ক রুহুন নেছা রুনা বলেন, ‘মানুষকে ভালো হওয়ার সুযোগ দিতে হয়। সেও ভালো হতে চায়। এ ব্যপারে আপনাদের সহযোগিতা চাই।’

মাদক মামলার বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে টঙ্গী পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শাহ আলম বলেন, মাদকের সংশ্লিষ্টতা পেলে অবশ্যই পুনরায় তাকে আইনের আওতায় আনা হবে।